পেন্সিল শার্পনার

-দোস্ত তোর নতুন পিএ মেয়েটা ত হেভি মাল।
– তোর ভালো লাগছে।
– কইলাম না, কঠিন চিজ। যা ফিগার… মাই গড। অফিসে এমন কড়া জিনিস পাইলি কই ?
– এই ত নতুন আসছে।
-আমার পি এ টা একটা বুড়াভাম। তুই ত শালা ভালা ফস্টি নস্টি করার সুযোগ পাইলি।
– ফস্টি নস্টির সুযোগ নাই। এইটা একটা রোবট।
– তাই নাকি?

– হ! দাড়া তোকে এনে দেখাই। ইন্টারকমে বলল, লিলি আমার রূমে আসো একটু। লিলি আসল।
-দোস্ত, এর পেট এ ছোট একটা ফ্রিজ আছে। পিঠে একটা শ্রেডার মেশিন আছে। এর বডিতে প্রিন্টার , তিন টেরা হার্ড ডিস্ক আর যাবতীয় অফিস সামগ্রী আছে।
– ভালো ত। দোস্ত, আমারে দুই দিনের জন্য ধার দে। ইউজ (!) কইরা দেখি।
-আচ্ছা নে। লিলি, তুমি আগামী দুইদিন আমার দোস্তের সাথে কাজ করবা।
দোস্ত আর রোবট লিলি বের
হয়ে গেল। পাঁচমিনিট পরই শোনা গেল দোস্তের গগনবিদীর্নকারী চিৎকার,
শীট !! প্রথম বন্ধু মাথা নাড়তে নাড়তে বলল ।
লিলির পেন্সিল শার্পনারটা কোন জায়গায় সেইটাই তো দোস্তকে বলা হয় নাই.

স্বামীর মৃত্যু

পুলিশ – আপনার স্বামী মারা গেলেন কী করে?

মৃতের স্ত্রী – জানি না স্যার! হন্তদন্ত হয়ে বাড়িতে ঢুকেই বললেন, “জলদি কিছু দাও পেটে ইঁদুর দৌড়চ্ছে।” তাই আমি ইঁদুর মারার বিষ দিয়েছিলাম। ব্যস উনি তারপর থেকে আর উঠছেন না।

আকবরের ফোন নাম্বার

শিক্ষকঃ বলতো বল্টু , আকবর জন্মেছিলেন কবে..?

বল্টুঃ স্যার, এটা তো বইয়ে নেই।

শিক্ষকঃ কে বলেছে বইয়ে নেই। এই যে আকবরের নামের পাশে লেখা আছে ১৫৪২-১৬০৫.

বল্টুঃ ও! ওটা জন্ম-মৃত্যুর তারিখ..? আমি তো ভেবেছিলাম ওটা আকবরের ফোন নাম্বার। তাই তো বলি, এত্তোবার ট্রাই করলাম, রং নাম্বার বলে কেন..? 😛😂 😜 ………………………………

শিক্ষকঃ বেঁহুশ😅😂

 

স্বামীর ঢপে স্ত্রীয়ের সোহাগ – 03

বৌ:- আমি পুরো ঘর সামলাই, রান্নাঘর সামলাই, বাচ্চাদের সামলাই.. তুমি কি করো ?

স্বামী :- আমি নিজেকে সামলাই, তোমার নেশা ধরানো চোখ দু’টো দেখে …..

বৌ:- (লাজুক চোখে ) তুমি না!

 

স্বামীর ঢপে স্ত্রীয়ের সোহাগ -02

বৌ:- হ্যাঁ গো, তুমি আমার জন্মদিন কি করে ভুলে গেলে ? ?

স্বামী :- কি করে তোমার জন্মদিন মনে রাখি, তোমাকে দেখে মনেই হয় না, তোমার এত বয়স বেড়ে গেছে !…

বৌ:- সত্যি ? যাই, একটু স্পেশাল চা করে আনি…

 

স্বামীর ঢপে স্ত্রীয়ের সোহাগ – 01

বৌঃ- দেখো, পাশের বাড়ির রায়বাবু একটা ৫০ ইঞ্চির টিভি কিনেছে, তুমি ও একটা কিনে আনো না…

স্বামীঃ- প্রিয়তমা, যার কাছে তোমার মতো সুন্দরী বৌ আছে সে কেন ফালতু টিভি দেখে সময় নষ্ট করবে ! ! 😜😎

বৌঃ- ওহ, তুমি না ……….. যাই, তোমার জন্যে জলখাবার নিয়ে আসি…

জোক্স

পাপ্পু আর টিনা দুজন দুজনের প্রেমে দিওয়ানা।মহল্লার সবার চোখ ফাকি দিয়ে একদিন নির্জন পার্কে গেল দেখা করাতে। দুজন পাশাপাশি হাটতেছিল, কিছুদূর হাটার পর টিনা পাপ্পুকে বলল- “তুমি নিশ্চয় আমার হাত ধরতে চাও?”

পাপ্পু লাজুক ভাবে বলল- “হা, কিন্তু তুমি বুঝলে কি করে?”

টিনা – “তোমার চোখের দিকে তাকিয়ে”

দুজন দুজনার হাত ধরে কিছুক্ষন হাটার পর টিনা পাপ্পুকে বলল-

Continue reading জোক্স